ফ্রিতে নতুন ভোটারদের ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করার উপায়

ফ্রিতে নতুন ভোটারদের ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করার উপায়

 ফ্রিতে নতুন ভোটারদের ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করার উপায়

আপনি জানেন কি সম্পূর্ণ বিনা টাকায় ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করা যায়? হয়তো অধিকাংশ মানুষই জানেন না। কিন্ত ফ্রিতে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করার উপায় আছে। বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন Nid Service এর ক্ষেত্রে এমন সুযোগও রেখেছে। ভোটার তথ্যে ভুল হলে শুধুমাত্র উপযুক্ত কাগজপত্র দিয়ে সংশ্লিষ্ট নির্বাচন অফিসে আবেদন করলেই Nid Card এর ভুল সংশোধন হয়ে যাবে।


তবে করা পাবে ফ্রিতে ভোটার আইডি কার্ডের ভুল সংশোধনের সুযোগ? এই সুযোগ কি সকলের জন্য? না এই সুযোগ শুধু হালনাগাদ কার্যক্রমে হওয়া নতুন ভোটারদের জন্য দেয়া হবে। সকল ভোটার বা পুরাতন ভোটারদের জন্য এই নিয়ম প্রযোজ্য নয়। আপনি যদি পুরাতন ভোটার হয়ে থাকেন তাহলে নির্ধারিত ফি জমা দিয়েই Nid সংশোধনের আবেদন করতে হবে।

ফ্রিতে নতুন ভোটারদের Nid সংশোধন করতে করনীয়

ভোটার তালিকা হালনাগাদ ২০২২ শেষ হতে চলেছে এবং কিছু কিছু এলাকায় শেষ হয়েও গেছে। যারা ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমে ভোটার হয়েছেন এবং হবেন। তাদের ভোটার তথ্য যাচাই করে দেখার জন্য খসড়া ভোটার তালিকা প্রস্তুত করে স্বঃ স্বঃ উপজেলা নির্বাচন অফিসে প্রেরণ করা হবে। 

ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম ২০২২ এ হওয়া নতুন ভোটারদের খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশের সম্ভাব্য তারিখ ২ জানুয়ারী ২০২৩। খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশ হলে অবশ্যই নতুন ভোটারগণ স্বঃ স্বঃ নির্বাচন অফিসে গিয়ে নিজ নিজ ভোটার তথ্য যাচাই করে আসবেন। দেখবেন ভোটার তথ্যে কোন ভুল আছে কি না। 

তাছাড়া নতুন ভোটারদের অনলাইন থেকে Nid Card Download করার সুযোগ রয়েছে। যদি খসড়া ভোটার তালিকা যাচাই করে ভোটার তথ্যে ভুল পান অথবা Nid Card Download করার পর কার্ডে কোন তথ্য ভুল খুজে পান তাহলে সম্পূর্ণ ফ্রিতে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করার সুযোগটি গ্রহণ করতে পারেন।


২০২২ সালের হালনাগাদ কার্যক্রমে হওয়া ভোটারদের ফ্রিতে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধনের জন্য আবেদন করার সম্ভাব্য শেষ তারিখ ১৭ জানুয়ারী ২০২৩। অবশ্যই উক্ত তারিখের পূর্বে সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে ভোটার তথ্য সংশোধনের জন্য আবেদন করবেন।

এ সময় রিভাইজিং অথরিটির কার্যক্রম চলমান থাকবে। রিভাইজিং অথরিটির মাধ্যমে ভোটার তথ্যের ভুল বিনা ফি তে সংশোধন করতে পারবেন। তাছাড়া হালনাগাদের সময় যারা নতুন ভোটার হতে পারেন নি, বাদ পড়ে গেছেন তারাও এ সময় নতুন করে ভোটার হতে পারবেন।

নতুন ভোটারদের খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশের তারিখ এবং বিনা ফি তে ভোটার আই্ডি কার্ড সংশোধনের আবেদন করার শেষ তারিখ কর্তৃপক্ষ তাদের প্রয়োজন অনুযায়ী পরিবর্তণ করতে পারেন। তাই সঠিক তারিখ সম্পর্কে জানতে ২০২৩ সালের জানুয়ারী মাসের শুরুতে স্বঃ স্বঃ নির্বাচন অফিসে যোগাযোগ করতে পারেন।

যদি আপনি ভোটার তালিকা হালনাগাদে ভোটার হয়ে থাকেন এবং আপনার ভোটার আইডি কার্ডে কোন তথ্য ভুল হয়ে থাকে তাহলে রিভাইজিং অথরিটির কার্যক্রমের সময় ফ্রিতে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধনের আবেদন করে ভুল সংশোধন করিয়ে নেয়া উত্তম। রিভাইজিং অথরিটির কার্যক্রমের সময় আবেদন না করতে পারলে পরবর্তীতে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধনের নির্ধারিত ফি জমা দিয়ে ভুল সংশোধনের আবেদন করে হবে।

এই ছিলো ফ্রিতে নতুন ভোটারদের ভোটার আইডি কার্ড সংশোধনের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য। এ বিষয়ে যদি কারো কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে কমেন্টস করবেন। আপনাদের উত্তর দিতে চেষ্টা করবো। লেখাটি যদি ভালো লাগে তাহলে বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করার অনুরোধ রইলো। ধন্যবাদ..!

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)
নবীনতর পূর্বতন