Nid Card Related Common Question And Answer

ভোটার আইডি কার্ড/এনআইডি কার্ড সম্পর্কিত সাধারণ জিজ্ঞাসা এবং উত্তর।

 
 
১। এনআইডি কার্ডের তথ্যে ভুল থাকলে কিভাবে সংশোধন করা যাবে?
উত্তরঃ এনআইডি কার্ডের তথ্য সংশোধনের আবেদন সাধারণত দুই ভাবে করা যায়। প্রথমত আপনার সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে ২ নং সংশোধনী ফরম সংগ্রহ করবেন এবং তা পূরণ করে নির্ধারিত ফি জমাদানের রশিদসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আবেদনের সাথে পিন-আপ করে অফিসে জমা দেয়া যায়। দ্বিতীয়ত বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করে আবেদন দাখিল করা যায়। 

২। এনআইডি কার্ড সংশোধনের জন্য নির্ধারিত ফি কত টাকা?
উত্তরঃ এনআইডি কার্ড সংশোধনের ফি পূর্ব নির্ধারিত। তবে সবার ক্ষেত্রে একই ফি প্রযোজ্য নয়। এনআইডি কার্ডের কিছু কিছু তথ্য সংশোধনের ক্ষেত্রে ফি ২৩০ টাকা, আবার কিছু তথ্য আছে যেগুলো সংশোনের জন্য ১১৫ টাকা জমা দিতে হবে। এছাড়া একাধিকবার আবেদন করলে ফি ধাপে ধাপে বাড়তে থাকে।

৩। নতুন ভোটারদের এনআইডি কার্ডের নম্বর কিভাবে পাওয়া যায়?
উত্তরঃ বর্তমানে নতুন ভোটারদের এনআইডি কার্ডের নম্বর আবেদনে উল্লেখিত মোবাইল নম্বরে এসএমএস এর মাধ্যমে সরবরাহ করা হয়। সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়েও এনআইডি কার্ডের নম্বর সংগ্রহ করা যায়।

৪। নতুন ভোটাররা কিভাবে দ্রুত এনআইডি কার্ড পেতে পারে?
উত্তরঃ নতুন ভোটাররা এনআইডি নম্বর হাতে পাওয়ার পর বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে রেজিস্ট্রেশন করে জাতীয় পরিচয়পত্রের অনুলিপি ডাউনলোড করে নিতে পারবে। এছাড়া নতুন ভোটারদের এনআইডি কার্ড তৈরী হলে উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে বিতরণ করা হয়।

৫। একজন ব্যক্তি সর্বোচ্চ কত বার ভোটার হতে পারবে?
উত্তরঃ বাংলাদেশের একজন নাগরিক সর্বোচ্চ একবারই ভোটার হতে পারবে। একাধিবার ভোটার হলে সশ্রম কারাদন্ড এবং জরিমানা হতে পারে। তাছাড়া একাধিকবার ভোটার হওয়ার পরিণাম ভয়াবহ হতে পারে। 

৬। নির্বাচন অফিসে না গিয়ে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার কোন উপায় আছে?
উত্তরঃ হ্যা, আপনি যদি প্রয়োজনের তাগিদে নিজ উপজেলা থেকে দুরে কোথায়ও বসবাস করে থাকেন তাহলে আপনার সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসের ডাটা এন্ট্রি অপারেটের সাথে মোবাইলের মাধ্যমে কথা বলতে পারবেন এবং আপনার সমস্যা সম্পর্কে আলোচনা করতে পারবেন। যেকোন উপজেলার নির্বাচন অফিসের ফোন নম্বর পাওয়ার উপায় সম্বর্কে আমাদের ওয়েবসাইটে বিস্তারিত পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

৭। এনআইডি কার্ডের ফিংগার প্রিন্ট (বায়োমেট্রিক) তথ্য সংশোধনের প্রক্রিয়া কি?
উত্তরঃ এনআইডি কার্ডের ফিংগার প্রিন্ট যদি ম্যাচ না করে তাহলে সংশ্লিষ্ট উপজেলা/থানা নির্বাচন অফিসে গিয়ে বায়োমেট্রিক তথ্য সংশোধনের জন্য আবেদন করতে হবে। 

 
৮। অনলাইনে ভোটার স্থানান্তরের নিয়ম কি?
উত্তরঃ এখন পর্যন্ত ভোটার এলাকা স্থানান্তরের আবেদন অনলাইনে দাখিল করা যায় না। সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়েই ১৩ নং স্থানান্তর ফরম পূরণ করে ভোটার এলাকা স্থানান্তরের আবেদন করতে হবে।

2 মন্তব্যসমূহ

  1. আবেদনকারীর পক্ষে যে কেউ কি আবেদন জমা দিতে পারবে? নাকি নিজের যেতে হবে জমা দিতে

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. আবেদনকারীর পক্ষে অন্য কেউ আবেদন করে দিতে পারবে না। এক্ষেত্রে আবেদনকারীকে নিজে গিয়ে আবেদন করতে হবে।

      মুছুন
একটি মন্তব্য পোস্ট করুন