Nid Card Related Common Question And Answer

ভোটার আইডি কার্ড/এনআইডি কার্ড সম্পর্কিত সাধারণ জিজ্ঞাসা এবং উত্তর।

 
 
১। এনআইডি কার্ডের তথ্যে ভুল থাকলে কিভাবে সংশোধন করা যাবে?
উত্তরঃ এনআইডি কার্ডের তথ্য সংশোধনের আবেদন সাধারণত দুই ভাবে করা যায়। প্রথমত আপনার সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে ২ নং সংশোধনী ফরম সংগ্রহ করবেন এবং তা পূরণ করে নির্ধারিত ফি জমাদানের রশিদসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আবেদনের সাথে পিন-আপ করে অফিসে জমা দেয়া যায়। দ্বিতীয়ত বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করে আবেদন দাখিল করা যায়। 

২। এনআইডি কার্ড সংশোধনের জন্য নির্ধারিত ফি কত টাকা?
উত্তরঃ এনআইডি কার্ড সংশোধনের ফি পূর্ব নির্ধারিত। তবে সবার ক্ষেত্রে একই ফি প্রযোজ্য নয়। এনআইডি কার্ডের কিছু কিছু তথ্য সংশোধনের ক্ষেত্রে ফি ২৩০ টাকা, আবার কিছু তথ্য আছে যেগুলো সংশোনের জন্য ১১৫ টাকা জমা দিতে হবে। এছাড়া একাধিকবার আবেদন করলে ফি ধাপে ধাপে বাড়তে থাকে।

৩। নতুন ভোটারদের এনআইডি কার্ডের নম্বর কিভাবে পাওয়া যায়?
উত্তরঃ বর্তমানে নতুন ভোটারদের এনআইডি কার্ডের নম্বর আবেদনে উল্লেখিত মোবাইল নম্বরে এসএমএস এর মাধ্যমে সরবরাহ করা হয়। সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়েও এনআইডি কার্ডের নম্বর সংগ্রহ করা যায়।

৪। নতুন ভোটাররা কিভাবে দ্রুত এনআইডি কার্ড পেতে পারে?
উত্তরঃ নতুন ভোটাররা এনআইডি নম্বর হাতে পাওয়ার পর বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে রেজিস্ট্রেশন করে জাতীয় পরিচয়পত্রের অনুলিপি ডাউনলোড করে নিতে পারবে। এছাড়া নতুন ভোটারদের এনআইডি কার্ড তৈরী হলে উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে বিতরণ করা হয়।

৫। একজন ব্যক্তি সর্বোচ্চ কত বার ভোটার হতে পারবে?
উত্তরঃ বাংলাদেশের একজন নাগরিক সর্বোচ্চ একবারই ভোটার হতে পারবে। একাধিবার ভোটার হলে সশ্রম কারাদন্ড এবং জরিমানা হতে পারে। তাছাড়া একাধিকবার ভোটার হওয়ার পরিণাম ভয়াবহ হতে পারে। 

৬। নির্বাচন অফিসে না গিয়ে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার কোন উপায় আছে?
উত্তরঃ ইতোপূর্বে নির্বাচন অফিসের ওয়েসবাইট থেকে সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসের ডাটা এন্ট্রি অপারেটের সাথে কথা বলার জন্য মোবাইল নম্বর পাওয়া যেত। বর্তমানে ওয়েবসাইট আপডেট করার পর অফিস কর্তৃপক্ষের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করার অপশন তুলে দেয়া হয়েছে। ভবিষ্যতে এই সুযোগ আবার চালু হতে পারে।

৭। এনআইডি কার্ডের ফিংগার প্রিন্ট (বায়োমেট্রিক) তথ্য সংশোধনের প্রক্রিয়া কি?
উত্তরঃ এনআইডি কার্ডের ফিংগার প্রিন্ট যদি ম্যাচ না করে তাহলে সংশ্লিষ্ট উপজেলা/থানা নির্বাচন অফিসে গিয়ে বায়োমেট্রিক তথ্য সংশোধনের জন্য আবেদন করতে হবে। 

 
৮। অনলাইনে ভোটার স্থানান্তরের নিয়ম কি?
উত্তরঃ এখন পর্যন্ত ভোটার এলাকা স্থানান্তরের আবেদন অনলাইনে দাখিল করা যায় না। সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়েই ১৩ নং স্থানান্তর ফরম পূরণ করে ভোটার এলাকা স্থানান্তরের আবেদন করতে হবে।
 
৯। অনলাইন থেকে আপনার আইডি কার্ড সংগ্রহ করবো কিভাবে? 
উত্তরঃ নতুন ভোটার হওয়ার পর অনলাইন থেকে ভোটার আইডি কার্ড সংগ্রহ করা বা ডাউনলোড করার উপায় জানতে এখানে ক্লিক করুন।
 
১০। অনলাইন থেকে স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড করার নিয়ম কি?
উত্তরঃ অনলাইন থেকে স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড করা যায় না। এই প্রশ্নটাই ভুল কারণ, স্মার্ট কার্ডে মেশিন রিডএবল চিপ বসানো থাকে। অনলাইন থেকে নতুন ভোটারদের স্মার্ট আইডি কার্ডের নম্বর সম্বলিত সাময়িক জাতীয় পরিচয়পত্র পিডিএফ আকারে ডাউনলোড করা যায় যা প্রিন্ট করে লেমিনেটিং করে ব্যবহার করতে হয়। 
 
১১ । স্মার্ট কার্ড চেক করার নিয়ম কি?
উত্তরঃ বর্তমানে মাত্র দুইটি উপায়ে স্মার্ট কার্ড চেক করা যায়। প্রথম উপায় মোবাইল থেকে ম্যাসেজ পাঠিয়ে এবং দ্বিতীয় উপায় সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে স্মার্ট কার্ড চেক করা যায়।  
 
১২। ভোটার এলাকা পরিবর্তন ফি কত টাকা?
উত্তরঃ ভোটার এলাকা পরিবর্তনের আবেদন করতে কোন প্রকার সরকারি ফি জমা দেয়া লাগে না, এটা একদম ফ্রি। 
 
১৩। এনআইডি কার্ডের স্থায়ী ঠিকানা সংশোধনের নিয়ম কি?
উত্তরঃ বর্তমানে অনলাইনে এনআইডি কার্ডের স্থায়ী ঠিকানা সংশোধনের আবেদন করা যায় না। এনআইডি কার্ডের স্থায়ী ঠিকানা সংশোধনের জন্য সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে আবেদন করতে হবে।
 
১৪। নতুন ভোটার হতে কত টাকা লাগে?
উত্তরঃ নতুন ভোটার হওয়া প্রত্যেকটি নাগরিকের মৌলিক অধিকার। নতুন ভোটার হতে এখন পর্যন্ত কোন সরকারি ফি লাগে না। যদি কোন কর্মকর্তা/কর্মচারী নতুন ভোটার হওয়ার জন্য অর্থের কথা বলে তাহলে বুঝতে হবে তিনি মিথ্য কথা বলছে।

26 মন্তব্যসমূহ

  1. আবেদনকারীর পক্ষে যে কেউ কি আবেদন জমা দিতে পারবে? নাকি নিজের যেতে হবে জমা দিতে

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. আবেদনকারীর পক্ষে অন্য কেউ আবেদন করে দিতে পারবে না। এক্ষেত্রে আবেদনকারীকে নিজে গিয়ে আবেদন করতে হবে।

      মুছুন
  2. ভোটার এলাকা স্থানান্তর করার ক্ষেত্রে বর্তমান এলাকার (যেখানে ভোটার হতে চাই)নির্বাচনী অফিসে আবেদন করার পর প্রথম মেসেজ আসার পর কি আগের ভোটার এলাকার (যেখানে ভোটার ছিলাম) নির্বাচনী অফিস থেকে নাম কর্তন করতে হবে কিনা জানাবেন প্লিজ

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. বর্তমানে যে এলাকায় ভোটার হবেন সেই এলাকায় নির্বাচন অফিসে আবেদন জমা দেয়ার পর আপনার আর কোন কাজ নেই। যে এলাকায় ভোটার ছিলেন সেই এলাকা থেকে আপনার নাম অফিস কর্তৃপক্ষই বাতিল করে দেবে এবং দ্বিতীয় ম্যাসেজ আপনার মোবাইলে চলে আসবে।

      মুছুন
  3. ভাই আমি অনেক আগে বলতে ২০০৮ সালে ভোটার হয়ে গেছিলাম। কিন্তু ভাই আমার এন আইডি সাথে আমার সাটিফিকেট নামের কোন মিল নাই। বয়স টিক নাই।আবার পেশা টিক নাই। ভাই আমার এস এস সি, এইচ এস সি, অনাস এর সাটিফিকেট আছে। একন আমি আমার এন আইডি কার্ড সাটিফিকেট অনুযায়ী করবো
    কি করনীয় ভাই।। একটু দয়া করে জানাবেন

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. এনআইডি কার্ড থেকে সম্পূর্ণ নাম ও জন্ম তারিখ পরিবর্তন করা খুব কষ্টকর। কখনো পরিবর্তণ হবে কি না সে বিষয়ে কোন গ্যারান্টি দেয়া সম্ভব না। তবে অবশ্যই আবেদন করে দেখবেন এবং আবেদনের সাথে উপরিউল্লেখিত কাগজপত্রগুলোর মধ্যে যে সকল কাগজপত্র আপনার আছে সেগুলো জমা দিতে চেষ্টা করবেন। তাছাড়া আমাদের ওয়েসবাইটে এনআইডি কার্ডের নাম সংশোধন সম্পর্কেও সঠিক তথ্য উল্লেখ করা হয়েছে, প্রয়োজনে একটু দেখে নিতে পারেন।

      মুছুন
  4. personalization does not exist with this national ID _ এই মেসেজের অর্থ কি?

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. ওই এনআইডি নম্বরের কার্ডটি ব্যক্তিগতকরণ করা হয়নি। কোন না কোন সমস্যার কারণে ওই এনআইডি নম্বর দিয়ে কার্ড তৈরী হচ্ছে না। এমন সমস্যা হলে এনআইডি কার্ড আসবেও না। সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে এনআইডি নম্বর দিয়ে চেক করে দেখুন আপনার ভোটার তথ্যে কিছু না কিছু সমস্যা ধরা পড়তে পারে।

      মুছুন
  5. ভাই ৩বছর কমাইতে চাচ্ছি এবং নামের প্রথম অংশ । সব ডকুমেন্ট আছে তাহলে কি হবে?

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. যদি সঠিক কাগজপত্র থাকে আপনার তাহলে অনলাইনে অথবা সংশ্লিষ্ট নির্বাচন অফিসে গিয়ে আবেদন করেন সংশোধন হয়ে যাবে।

      মুছুন
  6. অন লাইনে রেজিষ্ট্রেশন করতে গিয়ে বর্তমান ও স্থায়ী ঠিকানা লিখার পর “আপনার প্রদানকৃত তথ্যের সাথে সার্ভারের তথ্যের মিল পাওয়া যায়নি” এরকম মেসেজ আসছে। অথচ এনআইডি কার্ডে যে ঠিকানা আছে আমি তাই দিয়েছি। ১০৫ এ কল দিচ্ছি কিন্তু কল রিসিভ হচ্ছে না। এক্ষেত্রে করণীয় কি?

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. বর্তমান ও স্থায়ী ঠিকানা যদি সঠিক দিয়ে থাকেন তাহলে এমন ম্যাসেজ আসার কথা না। আপনি একটু কষ্ট করে সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে আপনার বর্তমান ও স্থায়ী ঠিকানা যাচাই করে নিন। তারপর পুনরায় অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন করার চেষ্টা করুন।

      মুছুন
  7. ভাই আমার এন,আই ডি দিসি ২ মাস হয়ে গেছে কিনতু কোন,খবর নাই

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসে যোগাযোগ করে আবেদনের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে খোজ নিন।

      মুছুন
  8. Ami dhaka thaki tar jonne dhakar vutar hoy but nid te amr sthaie thikana dhakar hoye gese amar sthaie thikana mymensingh a.taile ami kivabe mymensingh k sthaie thikana convert korbo?

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. আপনি বর্তমানে যে উপজেলার ভোটার আছেন ভোটার আইডি কার্ডের স্থায়ী ঠিকানা সংশোধনের জন্য সেই উপজেলার নির্বাচন অফিসে গিয়ে ঠিকানা সংশোধনের আবেদন করতে হবে। অনলাইনে এনআইডি কার্ডের স্থায়ী ঠিকানা সংশোধনের আবেদন করা যায় না। আমাদের ব্লগ সাইটে ভোটার আইডি কার্ডের স্থায়ী ঠিকানা সংশোধন সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য দেয়া হয়েছে প্রয়োজনে দেখে নিতে পারেন।

      মুছুন
  9. জনাব, আমি পাসপোর্ট করতে চাচ্ছি। কিন্তু আমার এনআইডিতে নাম ভুল যেমন খ এর স্থলে ক রয়েছে। এ ছাড়া পিতা মাতার নামের শেষে বংশের নাম বাদ পড়ে গেছে। যা এসএসসি সার্টিফিটেকেটে উল্লেখিত রয়েছে। জন্মতারিখ এসএসসির সঙ্গে এনআইডির মিল নেই। এনআইডিতে জন্মতারিখ কম রয়েছে, এ ক্ষেত্রে আমার করণীয় কি? আমি যদি ভবিষ্যতে বিদেশে ভিসার জন্য এপ্লাই করি, সে ক্ষেত্রে কি করা লাগবে। দয়া করে জানাবেন।

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. পাসপোর্ট এবং ভিসা করতে হলে এনআইডি কার্ড প্রয়োজন হবে। আপনার এনআইডি কার্ডে যা কিছু ভুল আছে সেগুলো মেনে নিয়ে ওভাবেই পাসপোর্ট করে বিদেশ যেতে পারবেন। অথবা এনআইডি কার্ড সংশোধন করে নিয়ে তারপর পাসপোর্টের আবেদন করতে পারেন।

      এনআইডি কার্ডের ভুলগুলো সংশোধন করার জন্য বেশ কিছুটা সময় হাতে রেখে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ আবেদন করতে হবে। যেমন-

      নাম সংশোধনের জন্য এসএসসি সনদ, জন্ম সনদ, স্ত্রীর এনআইডি কার্ডের কপি, কাবিননামা, সন্তানদের এনআইডি/জন্ম সনদ/শিক্ষা সনদ ইত্যাদি জমা দেয়া যেতে পারে।

      পিতা মাতার নামের পদবী ঠিক করার জন্য জন্ম সনদ, এসএসসি সনদ, পিতা-মাতার এনআইডি কার্ডের কপি, আপনার ভাই বোনের এনআইডি কার্ডের কপি জমা দেয়া যেতে পারে।

      এনআইডি কার্ডের জন্ম তারিখ সংশোধনের ক্ষেত্রে এসএসসি সনদ, জন্ম সনদ, স্ত্রীর এনআইডি কার্ডের কপি, কাবিননামা, সকল ভাই বোনের এনআইডি নম্বর ও জন্ম তারিখ উল্লেখিত পিতার উত্তরাধিকার সনদ/ওয়ারেশ সনদ ইত্যাদি জমা দেয়া যেতে পারে।

      যেসকল কাগজপত্রের কথা উল্লেখ করেছি তার মধ্যে যে কাগজগুলো আপনার আছে সেগুলোর একটি সেট তৈরী করে আবেদনের সাথে জমা দিতে হবে।

      মুছুন
  10. আপনাকে ধন্যবাদ অল্পসময়ের মধ্যে সমাধান দেওয়ার জন্য। কিন্তু আমার জানা প্রয়োজন, আমি যদি স্থায়ী ভিসার জন্য আবেদন করি, সেক্ষেত্রে আমার এনআইডি, সার্টিফিকেট এবং জন্মনিবন্ধনে আলাদা আলাদা তথ্য থাকলে কোনো সমস্যা হবে কিনা।

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. ভিসার জন্য আবেদন করতে আপনার এনআইডি কার্ড লাগবে, কখনো কখনো জন্ম সনদেও কাজ হয় তবে আমি সিওর না। পাসপোর্ট এবং এনআইডি কার্ডের তথ্য যদি সেইম থাকে তাহলে আর সমস্যা হবে না। সার্টিফিকেট প্রয়োজনে শো করানোর দরকারই নেই।

      মুছুন
  11. NID কার্ড হারিয়ে গেলে, ঠিকানা পরিবর্তন দিয়ে রিইস্যু করলে পাওয়া যাবে?

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. হ্যা পাওয়া যাবে। ভোটার আইডি কার্ডের ঠিকানা পরিবর্তন হয়ে গেলে তারপর রিইস্যুর আবেদন করতে হবে। অর্থাৎ একটা একটা করে আবেদন করতে হবে, দুইটা আবেদন একসাথে করা যায় না।

      মুছুন
  12. আমার মায়ের এনআইডির নামের সাথে আমার এনআইডিতে/অন্যান্য কাগজপত্রে ব্যবহৃত আমার মায়ের নামটি মিল নেই। অর্থ্যাৎ আমার মায়ের এনআইডিতে ওনার ডাকনাম কাজল রেখা ব্যবহার করা হয়েছে কিন্তু আমার এনআইডিতে ওনার অন্য নাম জফুরা বেগম ব্যবহার করা হয়েছে। আবার আমার ভাইবোনদের কাগজপত্রে কাজল রেখা (এনআইডি অনুযায়ী) ব্যবহার করা হয়েছে। এখন এ সমস্যার কোনো সমাধান আছে কি না?

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. আপনার জন্য পরামর্শ এটাই যে, আপনি মায়ের এনআইডি কার্ডের নাম অনুযায়ী আপনার যাবতীয় সার্টিফিকেট/কাগজপত্র সংশোধন করে নিন। সার্টিফিকেট সংশোধন হয়ে গেলে সহজেই এনআইডি কার্ড সংশোধন করতে পারবেন। কিন্ত আপনি যদি আপনার কাগজপত্র অনুযায়ী মায়ের এনআইডি কার্ড সংশোধন করেন তাহলে অন্যান্য ভাই বোনের ক্ষেত্রে আবার ঝামেলা হবে।

      মুছুন
  13. স্যার, আমার মায়ের নাম উনার জন্ম নিবন্ধন ও আমার সার্টিফিকেটে নিপু বেগম আছে। কিন্তু উনার এনআইডিতে শুধু নিপু আছে। এখন আমি উনার এনআইডি পরিবর্তন করতে হলে কি কি করতে হবে। আশাকরি পরামর্শ দিয়ে সাহায্যে করবেন।

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. অনলাইনে অথবা সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে আপনার মায়ের এনআইডি কার্ড সংশোধন করার জন্য আবেদন করে দেন। আবেদনের সাথে তার জন্ম সনদ, আপনার সার্টিফিকেট, আপনার বাবার এনআইডি কার্ডের কপি এবং তাদের বিবাহের কাবিননামা যদি থাকে সেটিও জমা দেবেন। তাছাড়া এনআইডি কার্ডে নিজের নাম সংশোধন সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য আমাদের ওয়েবসাইটে দেয়া আছে প্রয়োজনে দেখে নিতে পারেন।

      মুছুন
একটি মন্তব্য পোস্ট করুন