নতুন ভোটার হতে কি কি লাগে - Nid করতে কি কি লাগে?

নতুন ভোটার হতে কি কি লাগে - Nid করতে কি কি লাগে?

Nid Korte Ki Ki Lage

অনেকেরই প্রশ্ন নতুন ভোটার হতে কি কি লাগে বা Nid করতে কি কি লাগে? Nid করতে বেশ কয়েকটা কাগজপত্র প্রয়োজন হয়। একে একে সবগুলো কাগজপত্রের বিষয়ে উল্লেখ করবো। তবে কিছু কিছু এলাকা যেখানে রহিঙ্গাদের বসবাস সেখানে নতুন ভোটার হতে বা Nid করতে গেলে কিছু অতিরিক্ত কাগজপত্র প্রয়োজন হতে পারে এবং সে বিষয়ে সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসে যোগাযোগ করে সঠিক তথ্য জেনে নিতে পারেন। 


আমি এখানে সেই সকল কাগজপত্রের বিষয়ে উল্লেখ করবো যেগুলো একজন প্রকৃত বাংলাদেশী নাগরিকের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে। এই পোষ্টটি পড়ার পর আশা করি Nid Korte Ki Ki Lage বা নতুন ভোটার হতে কি কি লাগে সে বিষয়ে আর কোন প্রশ্ন থাকবে না।

নতুন ভোটার হতে কি কি লাগে - Nid Korte Ki Ki Lage?

এমন আরো কিছু মানুষের প্রশ্ন যেমন বয়স্ক ব্যক্তিদের Nid Korte Ki Ki Lage আর যাদের জন্ম ০১/০১/২০০৭ সালে বা তার আগে তাদের ক্ষেত্রে Nid Korte Ki Ki Lage? এই প্রশ্নের উত্তর এটাই যে সকলের ক্ষেত্রে একই ধরণের কাগজপত্র লাগে। কেবল ব্যক্তি বিবাহিত হলে, পেশাগত কারণে, প্রতিবন্ধী হলে কিছু কাগজপত্র বেশি লাগে এবং এ সকল বিষয়ে নিম্নে বিস্তারিত তথ্য দেয়া হলো।

জন্ম নিবন্ধন সনদ: নতুন ভোটার হতে আবেদনকারীর জন্ম নিবন্ধন সনদ নতুন ভোটার হওয়ার আবেদন এর সাথে বাধ্যতামূলক জমা দিতে হবে (বাধ্যতামূলক)। জন্ম নিবন্ধন সনদটি অনলাইনে যাচাই হবে হবে এবং হাতে লেখা জন্ম নিবন্ধন সনদ জমা দেয়া যাবে না। 

শিক্ষা সনদ: আবেদনকারীর শিক্ষাগত যোগ্যতা অনুযায়ী তার পিএসসি/জেএসসি/এসএসসি সনদের কপি আবেদনের সাথে জমা দিতে হবে। যার মুলতই সার্টিফিকেট নেই তার ক্ষেত্রে শিক্ষা সনদ জমা দেয়া লাগবে না। তবে শিক্ষা সনদ থাকা সত্ত্বেও শিক্ষাগত যোগ্যতা গোপন করে নতুন ভোটার হতে যাবেন না।

পিতা-মাতার Nid Card এর কপি: আবেদনের সাথে অবশ্যই পিতা মাতার এনআইডি কার্ডের ফটোকপি জমা দিতে হবে। যাদের পিতা-মাতা মৃত তারা পিতা-মাতার মৃত্যু সনদ আবেদনের সাথে জমা দেবেন।

❖ কাবিননামা/বৈবাহিক সনদ: আবেদনকারী যদি বিবাহিত হন তাহলে অবশ্যই আবেদনের সাথে কাবিননামা/বৈবাহিক সনদ জমা দেবেন। অবিবাহিতদের ক্ষেত্রে বৈবাহিক সনদ প্রযোজ্য নয়। 

স্বামী/স্ত্রীর Nid Card এর কপি: বিবাহিতেদর ক্ষেত্রে স্বামী/স্ত্রীর Nid Card এর ফটোকপি জমা দিতে হবে।

❖ রক্তের গ্রুপ পরীক্ষার রিপোর্ট: আবেদনকারীর রক্তের গ্রুপ পরীক্ষা করে তার রিপোর্টের কপি আবেদনের সাথে জমা দেয়া ভালো। 

❖ প্রতয়নপত্র: ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান/পৌর মেয়র/ওয়ার্ড মেম্বর/ওয়ার্ড কাউন্সিলরের প্রত্যয়নপত্র আবেদনের সাথে জমা দিতে হবে।

❖ নাগারিক সনদ: আবেদনকারীর নাগরিকত্বের সনদ আবেদনের সাথে জমা দিতে হবে (বাধ্যতামূলক)। 

❖ ইউটিলিটি বিলের কপি: নতুন ভোটার হওয়ার ক্ষেত্রে আবেদনের সাথে বিদ্যুৎ বিল/পানি বিল/গ্যাস বিলের কপি জমা দিতে হবে (বাধ্যতামূলক)। বাড়ীর যেকোন একজন সদস্যের নামে হলেই হবে।

❖ ট্যাক্স রশিদ: আবেদনের সাথে চৌকিদারী ট্যাক্স রশিদ/পৌর করের রশিদ/বাড়ী ভাড়ার রশিদ (বাধ্যতামূলক)। বাড়ীর যেকোন একজন সদস্যের নামে হলেই হবে। 



❖ অঙ্গীকারনামা: আবেদনের সাথে পূর্বে ভোটার হইনি মর্মে একটি অঙ্গীকারনামা তৈরী করে জমা দিতে হবে। যাদের বয়স অনেক বেশি তাদের ক্ষেত্রে বাধ্যতামূলক।

❖ পাসপোর্ট: আবেদনকারী যদি পাসপোর্টধারী বা প্রবাসী
হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই আবেদনের সাথে পাসপোর্টের কপি জমা দিতে হবে। (যদি থাকে)।

❖ ড্রাইভিং লাইসেন্স: আবেদনকারীর যদি ড্রাইভিং লাইসেন্স থাকে তাহলে তার একটি কপি আবেদনের সাথে জমা দিতে হবে। (যদি থাকে)।

❖ প্রতিবন্ধী সনদ: আবেদনকারী যদি শারীরিকভাবে প্রতিবন্ধী হয়ে থাকে তাহলে আবেদনের সাথে প্রতিবন্ধী সনদ জমা দিতে হবে।

❖ সার্ভিস আইডি কার্ড: আবেদনকারী চাকরিজীবি হলে তার সার্ভিস আইডি কার্ডের ফটোকপি আবেদনের সাথে যুক্ত করে দেবেন।

💢 প্রযোজ্য ক্ষেত্রে সুরক্ষা সেবা বিভাগ হতে প্রদত্ত দ্বৈত নাগরিকত্ব সনদ।

UK, USA, কানাডা, ইউরোপের বিভিন্ন দেশ, হংকং,সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানের নাগরিক্ত গ্রহণকারীদের ক্ষেত্রে-

সংশ্লিষ্ট দেশের নাগরিকত্ব গ্রহণকালে পঠিতব্য শপথ বাক্যে নিজ দেশের (বাংলাদেশের) আনুগত্য প্রত্যাহারের বিষয় উল্লেখ না থাকলে দ্বৈত নাগরিকত্ব সনদের প্রয়োজন নেই। কিন্ত যদি প্রত্যাহারের বিষয় থাকে তাহলে দ্বৈত নাগরিকত্ব সনদের প্রয়োজন হবে।

অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের ক্ষেত্রে দ্বৈত নাগরিকত্ব সনদ প্রয়োজন নেই। 

বৈবাহিক সূত্রে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব অর্জনকারী বিদেশী নাগরিকগণের ক্ষেত্রে সুরক্ষা সেবা বিভাগ হতে প্রদত্ব নাগরিকত্ব সনদ আবশ্যক।

উরোক্ত কাগজপত্রগুলোর মধ্যে যে সকল কাগজপত্র আপনার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নতুন ভোটার হওয়ার জন্য সেগুলো আবেদনের সাথে জমা দেয়া যেতে পারে। 

নতুন ভোটার হতে কি কি লাগে বা Nid করতে কি কি লাগে আশা করি এ বিষয়ে আর কোন প্রশ্ন থাকার কথা না। তারপরও যদি Nid Korte Ki Ki Lage এ সম্পর্কে কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে কমেন্টস করবেন। আপনাদের প্রশ্নের উত্তর দিতে চেষ্টা করবো। লেখাটি যদি ভালো লাগে তাহলে বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করার অনুরোধ রইলো। ধন্যবাদ..!

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)
নবীনতর পূর্বতন